Skip to main content

ডিমের খোসার কতিপয় অসাধারণ ব্যবহার

ডিম খেতে কে না পছন্দ করে। ডিমে প্রচুর পরিমাণ প্রোটিন বিদ্যমান। তাই ডাক্তার প্রোটিনের প্রধান উৎস হিসেবে প্রথম ডিমের নামটি বলে থাকেন। বিশেষজ্ঞরা প্রতিদিন একটি করে ডিম খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। এই ডিমের খোসাটি আপনি কী করেন? ফেলে দেন নিশ্চয়ই? কিন্তু তার খোসারও যে ব্যবহার করা যায়, এটা আমরা অনেকই জানি না। এই ফেলে দেওয়া ডিমের খোসাই রয়েছে অসাধারণ কিছু ব্যবহার? মাটির উর্বরতা বৃদ্ধি করার সাথে সাথে ত্বকের যত্নেও ব্যবহার করা যেতে পারে ডিমের খোসা। কি, অবাক হচ্ছেন? অবাক হওয়ার কিছু নেই। জেনে নিন ডিমের খোসার ভিন্ন কিছু ব্যবহার।

 

১। দ্রুত জয়েন্টের ব্যথা উপশম করনে

একটি পাত্রে অ্যাপল সাইডার ভিনেগার এবং একটি ডিমের খোসা ভেঙ্গে গুঁড়ো করে নিন। এবার এটি রেখে দিন যতদিন পর্যন্ত না ডিমের খোসাগুলো ভিনেগারের সাথে মিশে না যায়। মোটামুটি ২ দিন রেখে দিলে ডিমের খোসাগুলো ভিনেগারের সাথে মিশে যাবে। ডিমের খোসায় কোলাজেন, গ্লুকোসামিন, হায়ালুরোনিক অ্যাসিড থাকে যা ভিনেগারের সাথে মিশে ব্যথা উপশম করে দেয়। ব্যথার স্থানে এই মিশ্রণটি ম্যাসাজ করে লাগিয়ে দিন। অনেক উপকার পাবেন।

২। পোকা মাকড় এবং বালাই দূরে রাখতে

আপনার প্রিয় বাগানকে পোকামাকড়ের হাত থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করবে ডিমের খোসা। বাগানে চারপাশে ডিমের খোসা গুঁড়ো করে ছড়িয়ে দিন। এমনকি গাছের গোড়ায় ডিমের খোসা গুঁড়ো করে দিয়ে রাখতে পারেন। এতে আপনার গাছ পোকামাকড়ের হাত থেকে রক্ষা পাবে।

৩। ত্বক পরিষ্কার করতে

ডিমের খোসা দিয়ে যে অনেক সুন্দর প্যাক তৈরি করা যায়। এটা অনেকে জানে না, জেনে নিই ১টি ডিমের সাদা অংশ, এবং এক বা দুটি ডিমের খোসা গুঁড়ো করে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এটি ত্বকে ব্যবহার করুন। তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। আর দেখুন ত্বক কেমন নরম কোমল হয়ে গেছে।

৪। কফি মিষ্টি করতে

কফির তেতো স্বাদের কারণে  অনেকেই এটি খেতে চান না। এই তেতো স্বাদ দূর করার জন্য কিছু পরিমাণে ডিমের খোসা গুঁড়ো করে কফির সাথে মিশিয়ে দিন। ডিমের খোসা কফির নিচে পড়ে থাকবে আর কফির তেতো স্বাদ দূর হয়ে যাবে।

৫। মাটির উর্বরতা বৃদ্ধিতে

ডিমের খোসায় প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম এবং মিনারেল রয়েছে যা আপনার বাগানের উর্বরতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করবে। ডিমের খোসা গুঁড়ো করে নিন এবার এটি মাটিতে ব্যবহার করুন। দেখবেন মাটির উর্বরতাই কতটা উপকার এই ডিমের খোসা।

৬। ময়লা জমে যাওয়া ড্রেন পরিস্কার করতে

অনেকসময় রান্নাঘরের সিঙ্ক এ ময়লা জমে বন্ধ হয়ে যায়। এই সমস্যা থেকে সমাধান করে দিবে ডিমের খোসা। ডিমের খোসা মিহি গুঁড়ো করে জমা ড্রেনের মধ্যে দিয়ে দিন। তারপর বেশি করে পানি ঢেলে দিন। দেখবেন ড্রেন পরিষ্কার হয়ে গেছে।

৭। বাসনপত্র পরিষ্কার করতে

অনেকসময় খাবার রান্না করতে গিয়ে হাঁড়ি পাতিলের নিচে লেগে যায়। এই পোড়া দাগ দূর করতে ডিমের খোসা সাহায্য করবেন। ডিশ ওয়াশারের সাথে ডিমের খোসা গুঁড়ো করে মিশিয়ে নিন। এবার এটি হাঁড়ি পাতিল পরিষ্কার করার কাজে ব্যবহার করুন, দেখবেন পোড়া দাগ খুব সহজে দূর হয়ে গেছে। এভাবে আপনি আপনার সংসারের বিভিন্ন কাজে ডিমের খোসা ব্যভার করতে পারেন।

৮। ঘরের ওয়ালম্যাট তৈরিতে

ডিমের খোসা ঘরের ওয়ালম্যাট নকশা তৈরিতেও ব্যবহার করা হয়। এই শিল্পকর্ম গুলো করে অনেকে ছোট কুঠি শিল্প গড়ে তুলেছে। এই সকল ছোট কুঠির শিল্প চালিয়ে অনেকে নিজের পায়ে দাঁড়াচ্ছে আর মানুষ এই শিল্পকর্ম গুলো সুন্দরভাবে নকশা করে ঘরে রাখছে। যা  দেখতে অনেক সুন্দর লাগে।

এখন ডিম খেয়ে আর খোসাটুকু ফেলে দিবেন না,সেটি ব্যবহার করুন ঘরের বিভিন্ন কাজে।

 

 

প্রিয়া সাঈদ

প্রিয়া সাঈদ একজন স্নাতক এবং হাউজওয়াইফ। বই পড়া এবং জ্ঞান অর্জন করা তার প্রধান শখ এবং সাথে সাথে তার অর্জিত জ্ঞানকে সে শেয়ার করতে পছন্দ করে। আর এজন্য বিডি টিপস অ্যান্ড ট্রিকস এ তার এই বাস্তব এবং জ্ঞানগর্ভমূলক পোস্টসমূহ। তার এই পোস্টসমূহ যদি আপনার উপকারে আসে তাহলে অবশ্যই লাইক এবং শেয়ার করবেন আশা করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*